মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৩, ০১:০৬ পূর্বাহ্ন

মেট্রোরেল যেন নতুন বিনোদনকেন্দ্র

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১৪ জানুয়ারি, ২০২৩
322141633_1335857033938526_5149323213339708224_n-15e07303d03907ac69e109274e297d69

রাজধানীতে হাতিরঝিল ও চিড়িয়াখানার মতো বিনোদনকেন্দ্রে রূপ নিয়েছে মেট্রোরেল। সপ্তাহের অন্যান্য দিনে যাত্রীদের ভিড় কম থাকলেও শুক্র ও শনিবার ছুটির দিনে উপচেপড়া ভিড় দেখা যাচ্ছে। দীর্ঘ সারিতে দাঁড়িয়ে মানুষ টিকিট নিয়ে মেট্রোরেলে ভ্রমণ করছেন।

শুক্রবার (১৩ জানুয়ারি) মেট্রোরেলের আগারগাঁও স্টেশনে যাত্রীদের দীর্ঘ সারি দেখা গেছে। স্টেশন থেকে যাত্রীদের লাইন বিমান জাদুঘর ছাড়িয়ে যেতে দেখা যায়।

মেট্রোরেলে ভ্রমণ করতে আসা বেশিরভাগই পরিবার-পরিজন নিয়ে ঘুরতে এসেছেন। দীর্ঘ সারিতে থাকাদের মধ্যে কেউ ব্যক্তিগত কাজ মেট্রোরেলে চড়তে এসেছেন- এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি।

রাজধানীর শনির আখড়া থেকে মেট্রোরেলে চড়তে এসেছেন কবির হোসেন। সঙ্গে নিয়ে এসেছেন স্ত্রী শান্তনা হোসেন, ছেলে শামীম হোসেন ও মেয়ে তানিয়া হোসেনকে। তিনি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন।

কবির হোসেন  বলেন, সাপ্তাহিক ছুটির দিন থাকায় পরিবার-পরিজন নিয়ে মেট্রোরেলে ঘুরতে এসেছি। গত শুক্রবারও এসেছিলাম, আজকেও এসেছি। নতুন চালু হওয়ায় সবাই মেট্রোতে চড়তে বেশ উপভোগ করছেন।’

এদিকে, শুক্রবারের মতো শনিবারও (১৪ জানুয়ারি) আগারগাঁও স্টেশনে ভিড় দেখা যায়। এদিন যাত্রীদের চাপ সামলাতে নির্ধারিত সময়ের আগেই বন্ধ করে দেওয়া হয় স্টেশনের মূল ফটক। দুপুর ১২টায় ফটক বন্ধের কথা থাকলেও ১৫ মিনিট আগেই তা বন্ধ করা হয়। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে বাগবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন যাত্রীদের কেউ কেউ।

এসময় ফটকে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা জানান, মেট্রোরেল স্টেশনের ভেতরে অসংখ্য যাত্রী অপেক্ষমাণ। এজন্য চাপ সামলাতে আগেই ফটক বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

সরেজমিন দেখা গেছে, সাপ্তাহিক ছুটির দিন শুক্র ও শনিবার সকালে শীত উপেক্ষা করে মেট্রোরেলের স্টেশনের ফটকে ভিড় করছেন যাত্রীরা। কয়েকদিনের তুলনায় যাত্রীদের চাপ কিছুটা বেশি। এদিন টিকিট কিনতে গিয়ে বেশ ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে যাত্রীদের। মাঝে মধ্যেই টিকিট কেনার ইলেকট্রনিক মেশিন বন্ধ হয়ে যায়। ফলে লাইনে বেশি সময় দাঁড়িয়ে থাকতে হয় যাত্রীদের।

বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বের দ্বিতীয় দিন শনিবার তুরাগ তীরে মুসল্লিদের ঢল অব্যাহত রয়েছে। ফজরের নামাজের পর থেকে ইজতেমা মাঠে বয়ান শুরু হয়। ইজতেমার প্রভাব পড়েছে মেট্রোরেলেও। অনেকে আগারগাঁও থেকে মেট্রোরেলে চড়ে উত্তরার তৃতীয় ফেজ হয়ে তুরাগে যাচ্ছেন।

মাদারীপুর থেকে ইজতেমায় এসেছেন শফিকুল ইসলাম মাতবর। তার গন্তব্য টঙ্গীর তুরাগ নদীর তীরে বিশ্ব ইজতেমার ময়দান। তুরাগে যাওয়ার আগে মেট্রোরেলে চড়েছেন তিনি।

 

শফিকুল ইসলাম বলেন, মাদারীপুর থেকে এসেছি। শেওড়াপাড়া এলাকায় মেয়ের বাসায় ছিলাম। প্রথমে আগারগাঁও থেকে উত্তরায় যাবো মেট্রোরেলে। এর পরে উত্তরা থেকে বিশ্ব ইজতেমার ময়দানে যাবো। এর আগে মেট্রোরেলের কথা অনেক শুনেছি। এবার চড়লাম।

ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডে (ডিএমটিসিএল) জানায়, প্রয়োজনের চেয়ে সৌখিন মানুষের চাপ বেশি মেট্রোরেলে। যে কারণে শুক্র ও শনিবার মেট্রোরেলে চাপ বেশি।

ডিএমটিসিএলের ম্যানেজার (সিভিল) মাহফুজুর রহমান  বলেন, শুক্র ও শনিবার যাত্রীদের ভিড় বেশি থাকে। ছুটির দিনে মেট্রোরেলে শৌখিন যাত্রীর সংখ্যা বাড়ে। দূর-দূরান্ত থেকে অনেকে দেখতে আসেন। ইজতেমার অনেকেও মেট্রোরেলে চড়ছেন। আগারগাঁও থেকে উত্তরা যাতায়াত করছেন তারা।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর