রবিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩, ১০:৩০ অপরাহ্ন

মাধবপুরে সরকারি গোপাট দখল করে পুকুরে যাওয়ার রাস্তা নির্মান, ক্ষতিগ্রস্ত ১৫ কৃষক

মোঃ এরশাদ আলী
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২ জানুয়ারি, ২০২৩
322975585_895988065161451_5821660471229738509_n

মাধবপুর উপজেলার আন্দিউড়া ইউনিয়নের দুর্গাপুরে নিজের খননকৃত পুকুরে যাতায়াতের সুবিধার জন্য দুধন মিয়া চকদার নামের এক ব্যক্তি জনগনের চলাচলের জন্য ব্যবহৃত একটি গোপাটে ভেকু মেশিন দিয়ে মাটি ভরাট করতে গোপাটের দুইদিকে থাকা জমির মাটি কেটে নিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।এর ফলে অন্তত ১৫ জন নিরীহ কৃষক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক দুর্গাপুর গ্রামের স্বপন সরকার উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে এ বিষয়ে অভিযোগ করে প্রতিকার চেয়েছেন।মাধবপুর থানাতেও অভিযোগ করেছেন স্বপন সরকার।

অভিযোগ সূত্রে এবং সরেজমিনে গিয়ে দূর্গাপুর গ্রামের ওয়ার্ড মেম্বার নরোত্তম সরকার সহ বেশ কয়েকজনের সাথে আলাপ করে জানা যায় আন্দিউড়া ও দুর্গাপুর গ্রামের মাঝামাঝি মাঠে আন্দিউড়া গ্রামের দুধন মিয়া চকদারের বেশ কয়েকটি পুকুর রয়েছে।এসমস্ত পুকুরে যাতায়াতের সুবিধার্থে দুধন মিয়া চকদার ব্যক্তি উদ্যোগে দূর্গাপুর গ্রামের পশ্চিম দিকের পাটা পুলের কাছ থেকে কোদালিয়া খাল পর্যন্ত প্রায় দুই কিলোমিটার দীর্ঘ গোপাটের একটি অংশে মাটি ভরাটের কাজ শুরু করেন।গোপাটের উভয়দিকের জমি থেকে তিনি ভেকু মেশিন দিয়ে মাটি কেটে ছোট-বড় গর্ত তৈরী করে জমির ক্ষতি করেছেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করেন ভুক্তভোগী স্বপন সরকার।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে ১ জানুয়ারী রবিবার উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আবু আসাদ মোঃ ফরিদুল হক,ইউনিয়ন ভূমি সহকারি কর্মকর্তা নারায়ন দেব ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পেয়ে দুধন মিয়া চকদারকে কাজ বন্ধ রাখতে বলে আসেন।

বর্তমানে ভেকু মেশিন দিয়ে মাটি কাটার কাজ বন্ধ রয়েছে।আজ সোমবার(২ জানুয়ারী) বিকালে সরেজমিনে গেলে দূর্গাপুর গ্রামের (৩ নং ওয়ার্ড) মেম্বার নরোত্তম সরকার জানান, দুধন মিয়া চকদার নিজের ইচ্ছেমতো অন্যের জমির মাটি কাটতে পারেন না।তিনি এ ঘটনার সুষ্টু বিচার দাবি করেন।কথা হয় দূর্গাপুর গ্রামের হরিবল সরকারের পুত্র সচীন্দ্র সরকার,ফুলকিশোর সরকারের পুত্র পবিত্র সরকার, ঠাকুরচরণ সরকারের পুত্র স্মরন সরকার ও আন্দিউড়া গ্রামের আঃ রহমানের পুত্র মুসা মিয়ার সাথে।তারা প্রত্যেকেই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন বলে জানান।তারা এমন অপকর্মের বিচার দাবি করেন। তারা জানান তাদেরকে না জানিয়ে কিংবা সম্মতি না নিয়ে দুধন চকদার জবরদন্তি করে তাদের জমির মাটি কেটে উর্বরতা শক্তি বিনষ্ট করেছেন।

এ ব্যাপারে তারা তাদের ক্ষোভের কথা জানান।দুধন মিয়া চকদার চকদার দাবি করেছেন,তিনি জমির মালিকদের সাথে কথা বলে তাদের সম্মতিসাপেক্ষেই মাটি কেটেছেন।কোনো রকম জোরজবরদস্তি করেননি।এই গোপাট উন্নয়নে তিনি একটি আবেদন করেছেন বলেও দাবি করেন।আবেদনের কপি দেখতে চাইলে দুধন মিয়া চকদার হবিগঞ্জ -৪ আসনের সংসদ সদস্য ও বেসমারিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রীর কাছে করা এতদসংক্রান্ত একটি আবেদনের কপি দেখান।আবেদনটি গত ৩ ডিসেম্বর করা হয়েছে।আবেদনের প্রেক্ষিতে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা(পিআইও)কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সুপারিশ করেছেন প্রতিমন্ত্রী।

আবেদনের বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত পাওয়ার আগেই নিজে নিজে কেন গোপাটে মাটি কাটা শুরু করলেন এবং তার এভাবে মাটি কাটার কিংবা গোপাট ভরাটের সুযোগ রয়েছে কি না এমন প্রশ্নের কোনো জবাব দিতে পারেন নি দুধন মিয়া চকদার।অপর একজন সাংবাদিক সহ এ প্রতিনিধির উপস্থিতিতেই মাধবপুর থানার এসআই শুভ দে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে উভয় পক্ষকে শান্তি বজায় রাখার নির্দেশনা দিয়ে গেছেন। মাধবপুর উপজেলা মৎস্য অফিসার আবু আসাদ ফরিদুল হক জানান,ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযোগের সত্যতা পেয়ে দুধন মিয়া চকদারকে কাজ বন্ধ করতে বলে এসেছি।কাল(মঙ্গলবার) আবার দুই পক্ষকে নিয়ে বসতে পারি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর