শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ০৬:২৩ অপরাহ্ন

মানিকগঞ্জে পাসপোর্ট করতে এসে দুই রোহিঙ্গা আটক

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২
image-290893-1663498767

কক্সবাজারের উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বসবাসকারী নারী হুমাইরা মানিকগঞ্জের সিংগাইরের তাসমিন বেগম নামের নামে পাসপোর্ট করতে এসে হাতে নাতে ধরা পরেছে। তার সাথে আবু তাহের (২৭) নামের এক রোহিঙ্গা যুবককেও আটক করা হয়েছে। ওই নারী ও যুবক সাংবাদিকদের জানান, এক লাখ টাকার চুক্তিতে তারা পাসপোর্ট করতে আসেন। ইতোমধ্যে দালালকে ৬০ হাজার টাকা পরিশোধ করেছেন।

আবু তাহের ২০০৮ সালে মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে এসে রোহিঙ্গা হিসেবে স্থায়ী ভাবে থাকেন চকরিয়া। তিনি স্থানীয় একটি হোটেলের কর্মচারী হিসেবে বসবাস করছেন।

মানিকগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক নাহিদ নেওয়াজ জানান,রোববার দুপুরের দিকে তাসমিন বেগম নামের যে নারী পাসপোর্ট করতে এসে ধরা পরেছেন তার প্রকৃত নাম হুমাইরা। তিনি উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের থাকেন। তার রোহিঙ্গা আইডি ১৫৫২০১৭১২২৪১১৫৪৫৯। তিনি মা চার বোনসহ ২০১৭ সালে রোহিঙ্গা হিসেবে বাংলাদেশে আসেন।

তিনি আরো জানান, জেলার সিংগাইরের চান্দহর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের চর চান্দহর গ্রামের খলিলুর রহমানের মেয়ে তাসনিমা বেগম পরিচয়ে এবং স্থানীয় চেয়ারম্যান মো.শওকত হোসেন বাদলের পরিচয়পত্র নিয়ে পাসপোর্ট করতে আসেন। তখন যাচাই বাছাই ও ফিঙ্গার প্রিন্ট নেয়ার সময় রোহিঙ্গা ডাটাবেজের সাথে মিলে যায়। পরে তাকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন। ওই নারী সিরাগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার সোনাতানি ইউনিয়ন পরিষদ থেকে জন্মসনদ গ্রহন করেন।

এব্যাপারে চান্দহর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো.শওকত হোসেন বাদলের সাথে মোবাইলে কথা হলে তিনি জানান, তার স্বাক্ষর জাল করে একটি চক্র এই অপকর্মটি করেছেন। তিনি এব্যাপারে সিংগাইর থানায় সাধারন ডাইরী করবেন বলে জানান। তার স্বাক্ষরযুক্ত যে পরিচয় পত্রটি তৈরি করা হয়েছে সেখানে কোন স্মারক নম্বর নেই। স্বাক্ষরটিও তার নয়।

পাসপোর্ট অফিসের ওই নারী সাংবাদিকদের জানান, তিনিসহ ওই যুবক আজ রোববার সকালে কক্সবাজার থেকে মানিকগঞ্জে আসেন। তার সাথে স্থানীয় দালালও ছিলেন। তাকে নিয়ে পাসপার্টের যাবতীয় কাগজপত্র জমা দেন। তিনি জানান, ২০২০ সালে মোবাইল ফোনে তোফায়েল হোসেন(৫০) সৌদি প্রবাসীর সাথে বিয়ে হয়। তিনি সৌদি যাওয়ার জন্য মানিকগঞ্জ পাসপোর্ট অফিসে পাসপোর্ট করার জন্য আসেন।

এব্যপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. হাফিজুর রহমান বলেছেন, পাসপোর্ট অফিস থেকে এক রোহিঙ্গা নারী ও যুবককে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে বলে জানান। সেই সাথে দালালচক্র’র বিরুদ্ধে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর