https://channelgbangla.com
শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ১০:৩৯ অপরাহ্ন

পুষ্টিগুণে ভরপুর ফুলকপি

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৭ মার্চ, ২০২২
image-160123-1636345285
শীতকালে সবচেয়ে বেশি খাওয়া সবজির মধ্যে ফুলকপি অন্যতম। শীতের মরসুমে এর সবজি ও পরোটা তৈরি হয় ঘরে ঘরে। খেতে সুস্বাদু হওয়ার পাশাপাশি এটি স্বাস্থ্যের জন্যও খুবই উপকারী। ফুলকপিতে উপস্থিত পুষ্টির কথা বলতে গেলে এতে কার্বোহাইড্রেট এবং ভিটামিন ভালো পরিমাণে পাওয়া যায়। এছাড়াও ফুলকপির এমন অনেক গুণ রয়েছে যা আপনাকে শীতকালে অনেক রোগ থেকে বাঁচাতে পারে।
তাহলে চলুন জেনে নিই ফুলকপি খাওয়ার উপকারিতাগুলো।ফুলকপি খাওয়ার উপকারিতা : ফুলকপি পুষ্টিগুণে ভরপুর। এতে ক্যালোরি খুবই কম এবং ভিটামিন পর্যাপ্ত পরিমাণে পাওয়া যায়। ফুলকপিতে ভিটামিন সি, ভিটামিন কে, পটাসিয়াম এবং ম্যাঙ্গানিজের মতো অনেক উপাদান রয়েছে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো থেকে শুরু করে শরীরকে সুস্থ রাখতে সব ক্ষেত্রেই ফুলকপি উপকারী।

ইমিউনিটি বুস্টার – ফুলকপি ভিটামিন সি সমৃদ্ধ, যা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে। এর অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি বৈশিষ্ট্য রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়, যা শরীরকে রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সাহায্য করে।

কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে – ফুলকপি ফাইবার সমৃদ্ধ। যা শরীরে স্বাস্থ্যকর ব্যাকটেরিয়া বাড়ায়,প্রদাহ কমায় এবং হজমশক্তি বাড়ায়। পর্যাপ্ত পরিমাণে ফাইবার কোষ্ঠকাঠিন্য এবং অন্ত্রে ফোলা সমস্যাও দূর করে। অনেক গবেষণায় দেখা গেছে, ফুলকপির মতো ফাইবার সমৃদ্ধ সবজি শরীরকে অনেক মারাত্মক রোগ থেকে দূরে রাখে।

ওজন কমাতে কার্যকরী – ফুলকপি ওজন কমাতে খুবই কার্যকরী প্রমাণিত হয়, কারণ এতে খুব কম ক্যালোরি থাকে। ফাইবার সমৃদ্ধ হওয়ার কারণে, এটি খাওয়ার সাথে সাথে আপনার ক্ষিদে লাগে না এবং আপনি অতিরিক্ত খাওয়া থেকে রক্ষা পান। এ ছাড়া ফুলকপিতে জলের পরিমাণ বেশি, যা ওজন কমাতে খুবই উপকারী।

মরসুমী ফ্লু থেকে রক্ষা করতে উপকারী –

ফুলকপিতে উপস্থিত ভিটামিন সি সর্দি এবং ফ্লুর মতো মরসুমি ফ্লু থেকেও রক্ষা করে। এর পাশাপাশি এটি ত্বকের জন্যও খুবই উপকারী।

ত্বক ও চুলের জন্য উপকারী –

ফুলকপিতে উপস্থিত ভিটামিন কোলাজেনের উত্‍পাদন বাড়াতে কার্যকরী। কোলাজেন শরীরে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করার পাশাপাশি আপনার ত্বককে সুস্থ রাখে। ফুলকপি খেলে ত্বকের শুষ্কতা এবং বলিরেখার মতো অনেক সমস্যা কমে যায়।

স্নায়ুতন্ত্রকে শক্তিশালী করে –

ফুলকপিতে কোলিন বেশি পরিমাণে পাওয়া যায়। যা শরীরের জন্য অপরিহার্য পুষ্টি উপাদান। কোলিনের অভাব সাধারণত মানুষের মধ্যে পাওয়া যায়। এক কাপ ফুলকপিতে ৪৫ ​​মিলিগ্রাম কোলিন থাকে। কোলিন কোষের ঝিল্লিকে শক্তিশালী করে এবং মস্তিষ্কের বিকাশে সাহায্য করে। এছাড়াও, এটি একটি সুস্থ স্নায়ুতন্ত্রের জন্যও প্রয়োজনীয়। এর পাশাপাশি এটি আলঝেইমার এবং ডিমেনশিয়ার মতো রোগেও উপকারী।

ডায়াবেটিসে উপকারী –

ফুলকপিতে উপস্থিত সালফোরাফেন ডায়াবেটিস এবং কিডনি রোগের ঝুঁকি কমায়। এতে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট টিউমারকে বাড়তে বাধা দেয়। অনেক গবেষণায় এটা বিশ্বাস করা হয়েছে যে, সালফোরাফেন উচ্চ রক্তচাপ কমায় এবং ধমনী সুস্থ রাখতেও সহায়ক।

হাড় মজবুত করে –

একটি গবেষণায় বলা হয়েছে, ফুলকপিতে সঠিক পরিমাণে ক্যালসিয়াম থাকায় এটি হাড় মজবুত রাখতেও সাহায্য করে।

হার্টের জন্য উপকারী –

ফুলকপিতে প্রাকৃতিকভাবে আইসোথিওসায়ানেট নামক অণু থাকে যা হার্টকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। সবজি কার্ডিওভাসকুলার ডিজিজ অর্থাত্‍ হৃদরোগ থেকে রক্ষা করতে কাজ করে। তাই ফুলকপি খাওয়া হার্টের জন্য উপকারী বলে মনে করা হয়।

জিবাংলা টেলিভিশনের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন।

আমাদের সঙ্গে যুক্ত থাকুন ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে ফলো করুন ফেসবুক গুগল প্লে স্টোর থেকে Gbangla Tv অ্যাপস ডাউনলোড করে উপভোগ করুন বিনোদনমূলক অনুষ্ঠান।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর