January 18, 2022, 11:14 pm

সমুদ্রসীমা বিরোধে ফিলিপিনো জাহাজে চীনের জল কামান হামলা

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৮, ২০২১
  • 34 বার পঠিত

চীন বলছে, দক্ষিণ চীন সাগরে তার জলসীমার ভেতর দিয়ে অনুমতি ছাড়াই দুটি জাহাজ ফিলিপিন্সের সামরিক বাহিনীর কাছে রসদ পৌঁছে দেয়ার সময় তারা বাধা দিয়েছে।

সেকেন্ড টমাস শোল নামে একটি দ্বীপের চারপাশে জলসীমা নিয়ে দু‌’দেশের মধ্যে বিরোধে এটাই সর্বশেষ সংঘাত।

এই দ্বীপ এবং আশেপাশের স্প্র্যাটলি দ্বীপপুঞ্জে তেল-গ্যাসসহ প্রচুর খনিজ সম্পদ রয়েছে।

ম্যানিলা থেকে বিবিসি সংবাদদাতা হাওয়ার্ড জনসন জানাচ্ছেন, ফিলিপিন্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অভিযোগ করেছেন যে চীনা কোস্ট গার্ড ওই দুটি জাহাজের ওপর জল কামান ব্যবহার করেছে।

সেকেন্ড টমাস দ্বীপে ফিলিপিন্সের মেরিন সেনাদের প্রশিক্ষণ।

সেকেন্ড টমাস দ্বীপে ফিলিপিন্সের মেরিন সেনাদের প্রশিক্ষণ

সেকেন্ড টমাস শোল দ্বীপে মোতায়েন ফিলিপিনো সামরিক ঘাঁটির জন্য জাহাজ দুটি রসদ বহন করছিল।

বেইজিং সরকার বলছে, তার ভূখণ্ডের সার্বভৌমত্ব রক্ষার জন্যই তারা এ কাজ করেছে। বিবিসি সংবাদদাতা জানাচ্ছেন, দুর্গম সেকেন্ড টমাস শোল দ্বীপে ১৯৯১ সাল থেকে ফিলিপিন্সের মেরিন সেনা মোতায়েন রয়েছে।

সর্বশেষ ফিলিপিন্সের দুটি জাহাজ যখন সামরিক বাহিনীর জন্য রসদপত্র বহন করে নিয়ে যাচ্ছিল, তখন চীনা কোস্ট গার্ডের তিনটি জাহাজ তাদের গতিপথ বন্ধ করে তাদের মুখোমুখি দাঁড়ায়।

দক্ষিণ চীন সাগরে চীনা কোস্ট গার্ডের টহল। (ফাইল ফটো)
দক্ষিণ চীন সাগরে চীনা কোস্ট গার্ডের টহল (ফাইল ফটো)

এক পর্যায়ে চীনা জাহাজ থেকে জল কামান ব্যবহার করা হয়। এর ফলে ফিলিপিনো জাহাজ দুটি ফিরে যেতে বাধ্য হয়।

এই ঘটনার জন্য ফিলিপিনো পররাষ্ট্রমন্ত্রী টেওডোরো লকসিন ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন এবং চীনকে বলেন ‘সরে যাও’।

পাঁচ বছর আগে জাতিসংঘের একটি ট্রাইব্যুনাল রায় দিয়েছিল যে ওই দ্বীপটি ফিলিপিন্সের নিজস্ব অর্থনৈতিক অঞ্চলের অংশ।

কিন্তু চীন রায়টি মেনে নেয়নি।-বিবিসি

0Shares

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর