জানুয়ারিতে ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব, চলছে প্রস্তুতি

  • বাংলাদেশ সময় : শুক্রবার, ২০ নভেম্বর, ২০২০
  • ৪৮ প্রিয় পাঠক, সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন

আগামী বছরের ১৬ জানুয়ারি শুরু হচ্ছে ১৯তম ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব। এবারও এ উৎসবটির আয়োজকের দায়িত্বে থাকবে রেইনবো ফিল্ম সোসাইটি।

সম্প্রতি এমনটাই জানিয়েছেন উৎসব পরিচালক ও রেইনবো ফিল্ম সোসাইটির সভাপতি আহমেদ মুজতবা জামাল।

‘বেটার ফিল্ম, বেটার অডিয়েন্স অ্যান্ড বেটার সোসাইটি’ এই স্লোগানে অনুষ্ঠিত হবে উৎসবটি।

এবার ৬০টি দেশের ২০০ চলচ্চিত্র এ উৎসবে প্রদর্শিত হবে। উৎসবটি একাধিক ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত হবে। এগুলো হল- রাজধানীর শাহবাগের কেন্দ্রীয় গণগ্রন্থাগার, জাতীয় জাদুঘর, আলিয়ঁস ফ্রঁসেজ ঢাকা, স্টার সিনেপ্লেক্স ও বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মিলনায়তনে দর্শকরা ছবিগুলো দেখতে পাবেন।

ছবির প্রদর্শন ছাড়াও থাকছে এশিয়ান প্রতিযোগিতা বিভাগ, রেট্রোস্পেকটিভ বিভাগ, বাংলাদেশ প্যানারোমা, সিনেমা অব দ্য ওয়ার্ল্ড, চিলড্রেনস ফিল্ম, উইমেনস ফিল্ম সেশনসহ বেশ কয়েকটি প্রতিযোগিতা পর্ব।

উৎসবে বিচারকের দায়িত্ব পালন করবেন চিত্রনায়ক ফেরদৌস, নাট্যাভিনেত্রী বন্যা মির্জা, ভারতের খ্যাতিমান কণ্ঠশিল্পী, অভিনেতা ও চলচ্চিত্র নির্মাতা অঞ্জন দত্ত।

উৎসব প্রসঙ্গে আহমেদ মুজতবা জামাল বলেন, করোনাকালে এ ধরনের উৎসব আয়োজন করতে গিয়ে আগের চেয়ে বেশি পরিশ্রম করতে হচ্ছে। কারণ করোনাভাইরাসের কারণে বাড়তি সতর্কতা অনুসরণ করতে হচ্ছে। এছাড়া বিভিন্ন দেশের চলচ্চিত্র নির্মাতা ও অভিনয় শিল্পীরা উৎসবের সময় ঢাকায় আসবেন। তাদের মুভমেন্ট সমন্বয় করার জন্য এরই মধ্যে আমরা প্রস্ততি নিয়েছি। এছাড়া দর্শকরা যেন নিরাপদে ছবিগুলো উপভোগ করতে পারেন এজন্য স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করা হবে। সবার সহযোগিতায় আমরা উৎসবটি আগের মতোই বর্ণিল করতে চাই।

আপনার ফেসবুকে শেয়ার করে জিবাংলার সাথেই থাকুন

জিবাংলা টেলিভিশনের অন্যান্য সংবাদ

বেক্সিমকো ঢাকার মতো তারকাখচিত দল জেমকন খুলনাও পাত্তা পেল না গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের কাছে।

চট্টগ্রামের তারকা বোলার মোস্তাফিজের কাছে ধরাশায়ী হয়েছেন সাকিব-মাহমুদউল্লাহরা।

জেমকন খুলনা ৯ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নিল গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম।

এ জয়ের মূল নায়ক মোস্তাফিজুর রহমান। ৩.৪ ওভার বল করে মাত্র ৫ রান দিয়ে নিয়েছেন ৪ উইকেট।

গত দুই ম্যাচে খুলনার সফলতম ব্যাটসম্যান আরিফুলসহ শামীম, রিশাদ ও আলআমিনকে কম রানেই সাজঘরে ফিরিয়েছেন মোস্তাফিজ।

তবে খুলনার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দুটি উইকেট নিয়েছেন নাহিদুল ইসলাম। সাকিবকে মাত্র ৩ রানে ও অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহকে মাত্র ১ রানে ফেরান নাহিদুল।

চট্টগ্রামের এই দাপুটে বোলিংয়ে ১৭.৫ ওভারে ৮৬ রানেই গুটিয়ে যায় জেমকন খুলনার ইনিংস।

৮৭ রানের মামুলি টার্গেটে নেমে দুর্দান্ত শুরু করে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম।

যেই উইকেটে খুলনার ব্যাটসম্যানরা হাত খুলে মারতেই পারেনি, সেই উইকেটেই রানের বন্যা বইয়ে দিচ্ছেন চট্টগ্রামের ওপেনার লিটন দাস ও সৌম্য সরকার।

আল আমিন, শামীম ও হাসান মাহমুদদের তুলোধুনো করে ৪৬ বলে ৫৩ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন ওপেনার লিটন দাস।

অন্যদিকে কিছুটা মন্থর গতিতে ২৯ বলে ২৬ রানের ইনিংস খেলেন আরেক ওপেনার সৌম্য সরকার।

জেমকন খুলনার পক্ষে একমাত্র সাফল্য সৌম্যের উইকেট। অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহর হাতে ধরা দেন তিনি।

সৌম্য ফিরে গেলে মুমিনুল হল ৭ বলে ৫ রান করলে মাত্র ১৩.৪ ওভারে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় চট্টগ্রাম।

এর আগে টস জিতে নিয়মিত ওপেনার ইমরুল কায়েসকে তিনে পাঠিয়ে ওপেনিংয়ে নামেন সাকিব।

গত দুই ম্যাচের মতো আজকেও ইনিংস বড় করতে পারেননি সাকিব।

শুরুতেই ভুল বোঝাবুঝিতে রানআউট হন ৬ বলে ৬ রান করা বিজয়। ৭ বলে মাত্র ৩ রান করে সাজঘরে ফেরেন সাকিবও।

নাহিদুল ইসলামের বোলিংয়ে মিড অন ও লং অনের মাঝামাঝি জায়গায় দাঁড়িয়ে থাকা মোসাদ্দেক সৈকতের ক্যাচে পরিণত হন সাকিব।

সাকিবের পর পরই মাত্র ১ রান করে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদও। মাত্র ২ টেকেন তিনি। তাকে লেগবিফোরের ফাঁদে ফেলেন নাহিদুল।

দলের হাল ধরার চেষ্টা করে তিনে নামা ইমরুল কায়েস। ২৬ বলে ২১ রানের ইনিংস খেলেন তিনি।
অন্যদিকে তাকে সঙ্গ দেয়া জহুরুল অমি ১৪ বলে ১৪ রান করে আউট হন।

আজ আরিফুল হকও বেশি দূর যেতে পারেননি। একপ্রান্ত আগলে রেখে ৩০ বল টিকে থাকলেও রান করেছেন মাত্র ১৫ ।

ইনিংসের ১৮তম ওভারে নবম ব্যাটসম্যান হিসেবে মোস্তাফিজের তৃতীয় শিকারে পরিণত হন আরিফুল। এরপর বোলার আলআমিনকেও দ্রুতই ফিরিয়ে দেন মোস্তাফিজ।

১৭.৫ ওভারে ৮৬ রান করতেই থেমে যায় জেমকন খুলনার ইনিংস।

চট্টগ্রামের পক্ষে বল হাতে ৪ ওভারে মাত্র ১৫ রান খরচায় ২ উইকেট নেন নাহিদুল।

তাইজুলও ২টি উইকেট পেয়েছেন। তবে সবাইকে ছাড়িয়ে গেছেন কাটার মাস্টার মোস্তাফিজ। মাত্র ৫ রান দিয়ে মোস্তাফিজ নিয়েছেন ৪ উইকেট।

লিটন-সৌম্যর ব্যাটে উড়ে গেল চট্টগ্রাম

Close